কে এগিয়ে : শাকিব নাকি দেব?

গতকাল একজনের সাথে কথা হচ্ছিল নায়ক/অভিনেতার পারফেকশনের নানা বিষয় নিয়ে।একজন নায়ক দেখতে কেমন বা তার অভিনয় কেমন, অভিজ্ঞতা কেমন তার উপরে সে নায়ক এবং বড় একটা সময় পরে অভিনেতা হয়ে ওঠে।শাকিব খান ও দেব-কে নিয়ে কথা হচ্ছিল।

shakib-khan

নায়ক-অভিনেতা শাকিব :

নায়ক শাকিব শুরু থেকেই ভালো অভিনয় করত।তার লুক যেমন চমৎকার ছিল সে কাজও করেছে তার সময়ের শীর্ষ নায়িকাদের সাথে।হ্যাঁ, সাইড রোল করেছে অনেক কিন্তু সেগুলো তাকে সাহায্য করেছে আজকের পর্যায়ে একজন পরিণত অভিনেতা হতে।শাকিব যখন ‘সবাইতো সুখী হতে চায়, অনন্ত ভালোবাসা’ সিনেমাগুলো করে তখনই তার সম্ভাবনা বোঝা গিয়েছিল।শাবনূর শাকিবের জন্য বড় প্ল্যাটফর্ম হয়ে গেল।শাবনূরের সাথে ‘ফুল নেব না অশ্রু নেব, সবার উপরে প্রেম, প্রাণের মানুষ, ও প্রিয়া তুমি কোথায়, নয়ন ভরা জল, আমার স্বপ্ন তুমি, কপাল’ সিনেমাগুলো শাকিবকে শক্ত ভিত্তি গড়ে দেয়।শাবনূরের মত সুঅভিনেত্রীর সাথে শাকিব তার সাবলীল অভিনয়গুণ দিয়েই কাজ করেছে এবং সফল হয়েছে।পাশাপাশি পপি, পূর্ণিমা, অপু বিশ্বাস তাদের সাথে কাজ করতে করতে শাকিব তার অভিজ্ঞতার জায়গাতে সমৃদ্ধ হতে থাকে।পূর্ণিমার সাথে ‘সুভা’ তার ক্যারিয়ারে সবচেয়ে উজ্জ্বল সিনেমা।এ সিনেমায় রবীন্দ্রনাথের গল্পের ‘প্রতাপ’ চরিত্রটি মোটেও সহজ ছিল না।কিন্তু শাকিব দক্ষতার সাথে সে কাজটি করেছে এবং তাকে দেখে মনে হয়েছে সে পারফেক্ট ছিল সিনেমাটির জন্য।পূর্ণিমা তো অনবদ্য।অপুর সাথে ‘ভালোবাসলেই ঘর বাঁধা যায় না’ সিনেমায় অত্যন্ত বলিষ্ঠ ছিল শাকিব।পরিবারের সাথে বোঝাপড়ার জায়গাগুলোতে তার অভিনয় অনবদ্য।

এভাবেই শাকিব তার ক্যারিয়ারে তার সময়ের সেরা নায়ক রিয়াজ, ফেরদৌস-দের সাথে এবং সফল নায়িকা শাবনূর, পপি, পূর্ণিমা, অপু সবার সাথে কাজ করে একটা দৃঢ় অবস্থান তৈরি করে।এখন শাকিব শীর্ষ নায়ক।তার আপকামিং ‘মেন্টাল, সম্রাট, সত্তা’ এ সিনেমাগুলো তাকে নতুন করে চেনাবে।তাছাড়া একটা লম্বা সময় ইন্ডাস্ট্রিকে টিকিয়ে রাখার কাজটিতে শাকিবকে দেশের সিনেমা সারাজীবন মনে রাখবে।এসব একসাথে যোগ করলে একজন শাকিব খান তার বড় ক্যারিয়ারে একজন সফল তারকা, নায়ক, অভিনেতা।তার গল্পটাতে একটা সমগ্রতা আছে যার মাধ্যমে শক্ত ভিত মেলে।

নায়ক-অভিনেতা দেব :

Dev kolkata film actorএকজন দেব তার ক্যারিয়ারে পরিশ্রম অনেক করেছে তাতে কোনো সন্দেহ নেই।তবে তার শুরুর দিকটাতে নায়ক হিশেবে তার অভিনয় ছিল আনকোরা।’অগ্নিশপথ’ সিনেমা দিয়ে শুরু করা দেব যখন রচনা ব্যানার্জীর সাথে সিনেমা করে তার অভিনয়ে ইমম্যাচিউরিটি ছিল।আরো এমন অনেক সিনেমা অাছে যেগুলোতে তার ন্যাচারাল অভিনয়গুণ দেখা যায়নি।একটা পর্যায়ে এসে আজকের কোয়েল, শ্রাবন্তী, শুভশ্রী, পায়েল, মিমি তাদের সাথে কাজ করার অভিজ্ঞতায় একটা জায়গায় এলেও ব্যক্তিত্ববান হিশেবে একজন নায়কের যে লুক বা বডি ল্যাংগুয়েজ সেটি দেবের মধ্যে আজো মেলে না।দুএকটি সিনেমাতে ব্যক্তিত্ববান মনে হলেও তা ছিল ডিরেক্টরস ক্রেডিট।যেমন- ‘দুই পৃথিবী’..এ সিনেমায় তার রোলটি সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং টাচি ছিল।এ সিনেমাটি দেখে মনে হয়েছে তাকে দিয়ে অভিনয় করানো যায়।’চাঁদের পাহাড়’ দিয়ে দেব একটা আলোচনার জায়গা তৈরি করেছিল কিন্তু কথায় বলে ‘exceptional is not example’. চাইল্ডিশ লুক তার বাকি সব কাজে ম্যাচিউর অভিনয়সত্তার পক্ষে বাধা হয়ে দাঁড়ায়।

শাকিব যেভাবে প্রথম থেকে ন্যাচারাল সেটা দেবে মোটেও নেই।তার চেয়ে বড় ব্যাপার দেবের ভয়েস সম্পূর্ণ চাইল্ডিশ।ম্যাচিউরিটি নেই, কাঁদলে সেটা আরো বেশি বোঝা যায়।একজন অভিনেতা কান্নার অভিনয় যত অসাধারণভাবে পারবে তার অভিনয় দক্ষতা তত গভীর।শাকিবের কান্নার অভিনয় যে কতটা জীবন্ত তার জন্য ‘আমার স্বপ্ন তুমি’ আর ‘আরো ভালোবাসব তোমায়’ দেখলেই চলবে।শাকিবের ক্যারিয়ার বিশ্লেষণ করলে সে যত উজ্জ্বল দেব তত উজ্জ্বল নয়।শুধু বড় বাজেট, ফ্রেশ ক্যামেরার সামনে দাঁড়ানো আর ‘পাগলু’ নাচ ভালোমত পারলেই বড় নায়ক/অভিনেতা হয় না।আরো অনেক জরুরি বিষয় আছে।শাকিবের যোগ্যতা তার ইন্ডাস্ট্রির হাজারো সীমাবদ্ধতার মধ্যেও টিকে থেকে উজ্জ্বল ক্যারিয়ার গঠনের দিক থেকে অনেক অনেক সম্মানজনক।তাছাড়া শাকিব শাবনূর, পপি, পূর্ণিমা-দের সাথে কাজ করেছে আর তাদের সাথে ওখানকার শ্রাবন্তী, শুভশ্রী, পায়েল, পূজা, মিমি কোনোভাবেই তুলনার যোগ্য না।শাকিব তার ক্যারিয়ারে যে শক্তিমান সব কো-আর্টিস্ট পেয়েছে দেব পায়নি।শাকিব এজন্যই পরিণত।

দেশের তারকার পারফেকশন সঠিকভাবে বিশ্লেষণ করুন।ভেতরে ঢুকুন, গভীর থেকে ভাবুন দেখবেন অনেক ভুল বা ফ্যাশনেবল ধারণা পাল্টে যাবে।অন্ধভক্তি থেকে নয় লজিক থেকে বিশ্লেষণ করুন।দেখবেন আপনার দেশের তারকার পারফেকশন কোনো অংশে কম নয় বরং যুক্তিতে বেশিই থাকে।

দেবের থেকে শাকিব এগিয়ে আর এটা আবেগ নয় যুক্তি বলে…ভেবে দেখুন..

মন্তব্য করুন।

২ Comments

মন্তব্য করুন