আমিন খান

অভিনয় জীবনের ২২ বছর অতিক্রম করেছেন চিত্রনায়ক আমিন খান। কিন্তু এখনো তিনি চিরতরুণই রয়ে গেছেন। তার চেহারায় বিন্দুমাত্র বয়সের ছাপ পড়েনি। দেহাবয়বেও সে ধরনের কোনো পরিবর্তন আসেনি। মেদহীন শরীরে তিনি আগের মতোই প্রাণবন্ত রয়েছেন।
১৯৯০ সালে ‘নতুন মুখের সন্ধানে’ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে মিডিয়ায় এসেছিলেন আমিন খান। মোহাম্মদ হোসেনের ‘অবুঝ দুটি মন’ ছবির মাধ্যমে তার রূপালী পর্দায় পদার্পণ ঘটে। এ ছবিতে তার সাইনিং মানি ছিল মাত্র এক টাকা। তবে প্রথম ছবিতেই তিনি সবাইকে বাজিমাত করে দিয়েছিলেন। দর্শকরা তাকে মনে-প্রাণে গ্রহণ করে নিয়েছিলেন।

গত ২২ বছরে আমিন খানের ঝুলিতে প্রায় দেড়শত ছবি জমা পড়েছে। এরমধ্যে ‘ফুল নেবো না অশ্রু নেব’, ‘আজ গায়ে হলুদ’, ‘বধূবরণ’সহ বেশ কিছু ছবি দর্শক হৃদয়ে অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবে। এখনো তার দর্শক চাহিদা তুঙ্গে। বরাবরই তিনি রুচিশীল ছবিকে প্রাধান্য দিয়েছেন। নায়ক হিসেবে তার স্মার্টনেস এবং সু-অভিনয়ের প্রশংসা নিন্দুকের মুখেও শোনা যাচ্ছে।

অমিন খান বরাবরই রোমাণ্টিক ধাঁচের ছবিতে অভিনয় করেছেন। তবে এবার একটি ব্যতিক্রম ছবিতে অভিনয় করছেন। ছবির শিরোনাম ‘দুুদু মিয়া’। ফরায়েজি আন্দোলনের অন্যতম নেতা এবং ভারতবর্ষে ইংরেজ শাসনের বিরুদ্ধে সশস্ত্র সংগ্রামে অংশ নেয়া দুদু মিয়ার সংগ্রাম ও জীবনকাহিনী নিয়ে চলচ্চিত্রটি নির্মিত হচ্ছে। ডায়েল রহমানের চিত্রনাট্য ও পরিচালনায় এ ছবিতে দুদু মিয়ার চরিত্রে অভিনয় করছেন আমিন। সমপ্রতি সিলেটের জাফলংয়ে ছবির শুটিং শুরু হয়েছে।
‘দুদু মিয়া’ ছবিতে অভিনয় প্রসঙ্গে আমিন খান বলেন, ‘আমার চলচ্চিত্র ক্যারিয়ারে আজ পর্যন্ত অসংখ্য ছবিতে অভিনয় করেছি। কিন্তু ইতিহাসনির্ভর ছবিতে অভিনয় করা হয়নি। এবারই প্রথম এ ধরনের ছবিতে অভিনয় করছি। এ নিয়ে আমি বেশ রোমাঞ্চিত।’

আমিন খান আরও বলেন, ‘দুদু মিয়ার সংগ্রাম ও জীবনকাহিনী কিন্তু সবার জানা। তাই বেশ বুঝে-শুনে কাজটি করতে হচ্ছে। ছবির শুটিংয়ের জন্য আমাকে কখনো স্ক্রিন টেস্টে অংশ নিতে হয়নি। কিন্তু এ ছবিতে অভিনয়ের জন্য তাও করতে হয়েছে। শুটিং শুরুর মাস খানেক আগে থেকে পরিচালকের সঙ্গে আলাপ-আলোচনা করে সব ধরনের প্রস্তুতি নিয়েছি।’

শুটিংয়ের অভিজ্ঞতা প্রসঙ্গে আমিন খান বলেন, ‘শুরুর তিন দিনে সিলেটের জাফলংয়ে আমরা দুটি গানের শুটিং করেছি। দুটি গানই অসাধারণ হয়েছে। আমার বিশ্বাস, শ্রোতাদেরও গানগুলো ভালো লাগবে।’

‘দুদু মিয়া’ ছবিতে আমিন খানের বিপরীতে অভিনয় করছেন নওশীন। এটি এ জুটির প্রথম চলচ্চিত্র। এর আগে তারা দু’জন একটি টেলিছবিতে অভিনয় করেছিলেন। সুস্ময় সুমনের পরিচালিত ওই টেলিছবির নাম ‘সময়ের ভালোবাসা অসময়ে বাস কেন’।

আমিন খান-নওশীন ছাড়াও ‘দুদু মিয়া’ ছবিতে আরো অভিনয় করছেন- সুজাতা, আহমেদ শরীফ, শ্যামল জাকারিয়া প্রমুখ।
ছবিটি প্রসঙ্গে আমিন খান বলেন, ‘দুদু মিয়া একজন প্রতিবাদী মানুষ ছিলেন। সকল অন্যায়-অবিচারের বিরুদ্ধে তিনি রুখে দাঁড়িয়েছিলেন। সেসব বিষয়গুলোই এ ছবিতে সুস্পষ্টভাবে তুলে ধরা হচ্ছে।’
বর্তমান সময়ে ডিজিটাল ছবির জোয়ার বইছে। ‘ভালোবাসার রঙে’র সফলতার ধারাবাহিকতায় মুক্তিপ্রতীক্ষিত অধিকাংশ ছবিই ডিজিটাল ফরমেটে ট্রান্সফার করা হচ্ছে। ‘দেবদাস’, ‘চোরাবালি’, ‘মাই নেম ইজ খানে’র পর এবার এ তালিকায় যোগ হয়েছে আমিন খান অভিনীত ‘লোভে পাপ পাপে মৃত্যু’ ছবিটি। এটি নির্মাণ করেছেন সোহানুর রহমান সোহান। ডিসেম্বরে ছবিটি মুক্তি দেয়ার কথা ছিল। কিন্তু ছবির পরিচালক-প্রযোজক সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেছেন। ছবিটিকে ডিজিটাল ফরমেটে ট্রান্সফার করে তবেই মুক্তি দেয়া হবে। ত্রিভুজ প্রেমের কাহিনী নিয়ে ছবিটির গল্প আবর্তিত হয়েছে। আমিন খানের পাশাপাশি এ ছবিতে আরো অভিনয় করেছেন চিত্রনায়ক রিয়াজ ও পূর্ণিমা।
এ বিষয়ে আমিন খান বলেন, ‘বিশ্ব এখন ক্রমশ আধুনিক প্রযুক্তির দিকে ঝুঁকছে। তাই এ প্রতিযোগিতায় টিকে থাকতে হলে প্রতিটি ছবিকে ডিজিটাল রূপে মুক্তি দেয়াই উত্তম।’
উল্লেখ্য, সর্বশেষ গত ঈদে আমিন খানের ‘স্বামীভাগ্য’ ছবিটি মুক্তি পেয়েছিল। এতে তার বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন রোমানা। ছবিটি বেশ দর্শকপ্রিয়তা লাভ করেছিল।

 

উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র

ব্যক্তিগত তথ্যাবলি

পুরো নাম আমিনুল ইসলাম খান
ডাকনাম আমিন খান
জন্ম তারিখ ডিসেম্বর ২৪, ১৯৭২
জন্মস্থান খুলনা

কর্মপরিধি

অন্যান্য ব্যক্তি