মুনমুন

চলচ্চিত্র অভিনেত্রী মুনমুন যতটা না নায়িকা হিসেবে পরিচিত তার চেয়ে অনেক বেশী সমালোচিত অশ্লীল চলচ্চিত্রের অভিনেত্রী হিসেবে। ১৯৯৭ সালে মৌমাছি ছবিতে অভিনয়ের মাধ্যমে চলচ্চিত্রাঙ্গনে প্রবেশ করলেও শীঘ্রই তিনি বি-গ্রেডের চলচ্চিত্রের প্রধান নায়িকা হয়ে যান এবং তাকে কেন্দ্র করেই অশ্লীলতা নির্ভর অ্যাকশন চলচ্চিত্র নির্মিত হতে শুরু করে।

বাংলাদেশী চলচ্চিত্রে অশ্লীল যুগের অন্যতম প্রধান নায়িকা মুনমুন অশ্লীলতা বন্ধের পর চলচ্চিত্র থেকে ছিটকে পড়েন। শোনা যায় এ সময় তিনি জীবিকার জন্য যাত্রায়ও অভিনয় করেন। দীর্ঘদিন পরে কুমারী মা চলচ্চিত্রের মাধ্যমে পুনরায় ফিরে আসলেও স্থায়ী হতে পারেন নি মুনমুন।

মুনমুনের জন্ম ইরাকে হলেও তার পৈতৃকবাড়ি চট্টগ্রামে। ব্যক্তিগত জীবনে তিনবার বিয়ের পিঁড়িতে বসলেও শেষ পর্যন্ত সংসার টিকে নি বলে শোনা যায়। ২০১৭ সালে কালেরকন্ঠে প্রকাশিত রিপোর্টে সুদীপ কুমার দীপ লিখেন, ‘২০০৩ সালে বিয়ে করেন মুনমুন। এই ‘নিষিদ্ধ নারী’ এখন দুই ছেলের মা। উত্তরায় ছোটখাটো একটা গার্মেন্টসও দিয়েছেন। থাকেনও সেখানেই। সংসারের কাজ শেষ করে প্রতিদিন অফিস করেন। ব্যবসা বাড়ানোর জন্য ঋণের ব্যবস্থাও করছেন। ব্যবসাই এখন তাঁর সব। শীতের সময় দারুণ ব্যস্ত থাকেন মুনমুন। এবারের মৌসুমে ৪০ জেলায় প্রায় ৬০টি যাত্রাপালায় অংশ নিয়েছেন। যাত্রায় ভালো আয় হয় বলেও জানান তিনি।’

মুনমুনের শিক্ষাগত যোগ্যতা আ্‌ইএ।

সূত্র:
১. কালের কন্ঠ

 

উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র

ব্যক্তিগত তথ্যাবলি

পুরো নাম মুনমুন
জন্ম তারিখ জুলাই ৩, ১৯৭৯
জন্মস্থান কুর্দিস্থান, আরাবিল, ইরাক। পৈতৃকবাড়ি কদরপুর গ্রাম, রাউজান, চট্টগ্রাম।