আলমগীর

চিত্রনায়ক আলমগীর (Alamgir) চিত্রনায়ক হওয়ার অনেক আগে থেকেই চলচ্চিত্রের সাথে জড়িত। বাংলাদেশের প্রথম পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র মুখ ও মুখোশের অন্যতম প্রযোজক ছিলেন তার পিতা তার পিতা কলিম উদ্দিন আহম্মেদ ওরফে দুদু মিয়া। আলমগীর আশি ও নব্বইয়ের দশকে দাপটের সঙ্গে কাজ করেছেন। পারিবারিক টানাপোড়েন, সামাজিক অ্যাকশন, রোমান্টিক অ্যাকশন, ফোক ফ্যান্টাসিসহ সব ধরনের চলচ্চিত্রে তিনি ছিলেন সফল। পরবর্তী কালে তিনি পরিচালনার সাথেও যুক্ত হন

‘আমার জন্মভূমি’ চলচ্চিত্রে অভিনয়ের মাধ্যমে ১৯৭৩ সালে অভিনয় ক্যারিয়ার শুরু করেন আলমগীর। দস্যুরাণী তার অভিনীত দ্বিতীয় ছবি। শাবানার সাথে জুটি গড়ে তিনি ১২০টি ছবিতে অভিনয় করেন। ১৯৮৬ সালে তার পরিচালিত প্রথম চলচ্চিত্র মুক্তি পায়, ছবির নাম ‘নিষ্পাপ’। ১৯৯৪ সালে তার পরিচালিত দ্বিতীয় চলচ্চিত্র ‘নির্মম’ মুক্তি পায়। সম্প্রতি ২০১৮ সালে তার পরিচালিত তৃতীয় চলচ্চিত্র ‘একটি সিনেমার গল্প’ মুক্তি পায়।

সুদর্শন এই অভিনেতা তার চমৎকার অভিনয়ের জন্য অনেকগুলো পুরস্কার অর্জন করেছেন, শুধুমাত্র সেরা অভিনেতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন সাতবার। পার্শ্ব অভিনেতা চরিত্রেও দুইবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন তিনি। এছাড়া ২০১৯ সালে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের আজীবন সম্মাননায় ভূষিত হন।

আলগমীরের জন্ম ১৯৫০ সালের ৩ এপ্রিল ঢাকায়। তিনি প্রথমে গীতিকার খোশনূর আলমগীরকে বিয়ে করেন। গায়িকা আঁখি আলমগীর তাদের সন্তান। পরবর্তীতে খোশনূরের সাথে বিবাহ বিচ্ছেদের পরে আলমগীর প্রখ্যাত শিল্পী রুনা লায়লাকে বিয়ে করেন।

 

ব্যক্তিগত তথ্যাবলি

পুরো নাম মহিউদ্দিন আহমেদ
ডাকনাম আলমগীর
জন্ম তারিখ এপ্রিল ৩, ১৯৫০
জন্মস্থান ঢাকা। পৈতৃকবাড়ি ব্রাক্ষ্মনবাড়িয়ার নবীনগরে।
স্বামী/স্ত্রী রুনা লায়লা
ছেলে-মেয়ে আঁখি আলমগীর

কর্মপরিধি