রেদওয়ান রনি

বাংলাদেশের ছোটপর্দা এবং বড়পর্দার জনপ্রিয় নির্মাতাদের অন্যতম রেদওয়ান রনি। মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর সহকারী হিসেবে তিনি নির্মান প্রক্রিয়ার সাথে যুক্ত হলেও নিজ যোগ্যতার গুণে তিনি তার অবস্থানকে শক্ত করতে সক্ষম হয়েছেন। চোরাবালি চলচ্চিত্র নির্মানের মাধ্যমে তার চলচ্চিত্র নির্মাতা হিসেবে যাত্রা শুরু হয়।

জনপ্রিয় নাট্যনির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকীকে রেদওয়ান রনির গুরু বলা যেতে পারে। ফারুকীর পরিচালনায় আকৃষ্ট হয়েই নাটক চলচ্চিত্র নির্মানে আগ্রহী হয়ে উঠেন রনি। রাজশাহীর নিউ গভর্নমেন্ট ডিগ্রি কলেজ থেকে এইচএসসি পাশ করার পর দুই বন্ধু রনি এবং রানা ঢাকায় এসে মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর ছবিয়াল দলের সাথে যুক্ত হয়ে কাজ শুরু করেন। পরবর্তীতে হঠাৎ সড়ক দুর্ঘটনায় বন্ধু রানার মৃত্যুতে চরম শোকাহত রেদওয়ান রনি তার প্রায় সকল নির্মানই উৎসর্গ করেন বন্ধু রানাকে।

রেদওয়ান রনি তার একক নাটক এবং টেলিফিল্মগুলোর জন্য পরিচিত হয়ে উঠলেও একক ও যৌথ পরিচালনায় নির্মিত একাধিক ধারাবাহিক নাটক নির্মানের মাধ্যমে দক্ষতার বিকাশ ঘটাতে সক্ষম হন এবং প্রিয় নির্মাতা হিসেবে দর্শকের মনে স্থান করে নিতে সক্ষম হন। হাউসফুল, বিহাইন্ড দ্য সিন, এফএনএফ, পাসপোর্ট প্রভৃতি তার নির্মিত ধারাবাহিক টিভি নাটক। রনির পরিচালনায় নির্মিত টিভি নাটকের মধ্যে রয়েছে তালা, শুনছেন একজন রেডিও জকির গল্প, প্রুফ রিডার, উচ্চতর শারীরিক বিজ্ঞান, বেহালা, ভালোবাসা ১০১ ইত্যাদি। এছাড়া গুরু মোস্তফা সরয়ার ফারুকীর সঙ্গে মিলে তৈরি করা ‘এমন দেশটি কোথাও খুঁজে পাব নাকো তুমি’ এবং ‘জননী সাহসিনী ১৯৭১’ টেলিফিল্মের জন্য তিনি সমালোচকদেরও সুজনজরে পড়েন।

রেদওয়ান রনি ২০০৬ সালে প্রথম নির্মান করেন উড়োজাহাজ। পরবর্তীতে নাটক, টেলিফিল্ম ইত্যাদি নির্মান করে অভিজ্ঞতা অর্জন শেষে ২০১১ সালে তিনি তার প্রথম চলচ্চিত্র চোরাবালি নির্মানের কাজ শুরু করেন এবং ২০১২ সালের ডিসেম্বর মাসে ছবিটি মুক্তি দেন। প্রথম ছবিতেই তিনি বাংলা চলচ্চিত্রপ্রেমিদের মন কাড়তে সক্ষম হন। সাধারণভাবে টিভি থেকে চলচ্চিত্রে আসা নির্মাতাদের কাজ চলচ্চিত্রের দর্শকরা সহজভাবে গ্রহণ করেন না, কিন্তু রেদওয়ান রনি সেই তুলনায় সাদরে গৃহীত হন।

কাজের জন্য স্বীকৃতিও পেয়েছেন রনি। ২০১২ সালে চোরাবালি চলচ্চিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ সংলাপ রচয়িতা হিসেবে জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার লাভ করেন তিনি। ২০০৯ সালে টিভি নাটকের জন্য বেস্ট ডিরেক্টর অব দ্য ইয়ার পান রনি। বাংলাদেশ কালচারাল রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন (বিসিআরএ) অ্যাওয়ার্ডসহ কালচারাল জার্নালিস্ট ফোরাম অব বাংলাদেশ (সিজিএফবি) অ্যাওয়ার্ড লাভ করেছেন এ নির্মাতা।

রেদওয়ান রনির প্রযোজনা প্রতিষ্ঠানের নাম পপর্কন। এই প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে ২০১৪ সালর ১৫ ডিসেম্বর তারিখে তিনি প্রথম বাংলাদেশী অনলাইন টিভি চ্যানেল ‘পপকর্ন লাইভ’ চালু করেন। এই চ্যানেলের মাধ্যমে তার প্রতিষ্ঠান থেকে নির্মিত নাটক টেলিফিল্ম চলচ্চিত্র ইত্যাদি প্রচারের পাশাপাশি অন্যান্যদের নির্মিত অনুষ্ঠানাদিও প্রচার করা হয়।

ব্যক্তিগত জীবনে রেদওয়ান রনি বিবাহিত। দীর্ঘ চার বছরের প্রেমের সম্পর্কের ইতি ঘটিয়ে ২০১৩ সালের ২২ জানুয়ারী তারিখে আয়েশা প্রেমাকে বিয়ে করেন রনি। রাজধানীর অফিসার্স ক্লাবে অনুষ্ঠিত বিয়ের অনুষ্ঠানে প্রায় দুই হাজার অতিথি যোগদান করেন। নাটক নির্মানের পাশাপাশি পড়াশোনা চালিয়ে রনি ঢাকার ইস্ট ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি থেকে কম্পিউটার বিজ্ঞানে স্নাতক ডিগ্রি অর্জন করেন।

সূত্র:
১. দ্য ডেইলি স্টার
২. প্রথম আলো
৩. উইকিপিডিয়া
৪. বিডিনিউজ২৪
৫. রাইজিংবিডি
. বাংলানিউজ২৪

 

উল্লেখযোগ্য চলচ্চিত্র

ব্যক্তিগত তথ্যাবলি

পুরো নাম রেদওয়ান রনি

কর্মপরিধি