পিঁপড়াবিদ্যা ()

৬.১
আপনার রেটিঙঃ
- / ১০ X
রেটিঙঃ ৬.১/১০, ভোট দিয়েছেন ২২ জন | সমালোচক রেটিঙঃ
দর্শক মন্তব্যঃ ৪ টি | সমালোচক মন্তব্যঃ ২ টি

কাহিনী সংক্ষেপ

এমএলএম ব্যবসা করে অল্প দিনে ধনী হওয়ার চেষ্টায় মুকিত ঘুরে বেড়ায় গুলশান-বনানী এলাকায়। ইংরেজি শিক্ষার বই পড়ে ইংরেজিতে কথা বলার চেষ্টা করে। তার স্বপ্ন একদিন এক বিদেশিনীর সঙ্গে প্রেম হবে এবং সে ঠাস ঠাস ইংরেজি বলে বিদেশিনীকে পটিয়ে বিদেশে চলে যাবে। ‘শর্টকাটে ধনী হওয়া’র পথ ধরে মিঠুও। পরিচয় হয় শিনার সঙ্গে। এরপর জড়িয়ে পড়ে নানা জটিলতায়।

প্রধান অভিনেতা - অভিনেত্রী

Sheena Chohan_B শিনা চৌহান রীমা
DSCN2360 নূর ইমরান মিঠু মিঠু
Mukit Zakaria মুকিত জাকারিয়া
no image সাব্বির হাসান লিখন অয়ন
সকল কলাকুশলী

ছবি এবং ভিডিও

  • Pipra Bidda (2)
  • Pipra Bidda (3)
  • Pipra Bidda (4)
  • Pipra Bidda (1)

প্রধান কলাকুশলী

কাহিনী মোস্তফা সরয়ার ফারুকী
চিত্রনাট্য মোস্তফা সরয়ার ফারুকী
সংলাপ মোস্তফা সরয়ার ফারুকী
সঙ্গীত পরিচালক চিরকূট
সুরকার চিরকূট
গীতিকার -
সকল কলাকুশলী

অন্যান্য তথ্যাবলী

মুক্তির তারিখ ২৪ অক্টোবর, ২০১৪
ফরম্যাট ডিজিটাল
রং রঙিন
ইংরেজী নাম The Ant Story
দেশ বাংলাদেশ
ভাষা বাংলা
শ্যুটিং লোকেশন ঢাকা (বনানী, নিকুঞ্জ, কুড়িল, নাখালপাড়া, পুরান ঢাকা), কক্সবাজার

ট্রিভিয়া

  • ছবির হিরো নূর ইমরান মিঠুকে সকলের কাছে পরিচিত করে তোলার জন্য ছবি মুক্তির আগেই 'হিরো হতে কি লাগে' শিরোনামে একটি মিউজিক ভিডিও নির্মান করে মুক্তি দেয়া হয়।
  • ১১ অক্টোবর ২০১৪ তারিখে ট্রেলার মুক্তি উপলক্ষে প্রচারণার উদ্দেশ্যে 'আন্দাজে ঢিল ছোড়া' শিরোনামে একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়। ট্রেলার দেখে গল্প কি হতে পারে তা ধারনা করে ছবিয়াল ফেসবুক পেইজে পাঠানোর আহবান জানানো হয়। ফলে, প্রথম দশ ঘন্টায় ট্রেলারটি ইউটিউবে এক লক্ষবারের বেশী দেখা হয়।
  • ঢাকা ও কক্সবাজারের বিভিন্ন লোকেশনে ৪০ দিন ধরে চলচ্চিত্রটির ক্যামেরা ধারণ কাজ করা হয়।
সব ট্রিভিয়া দেখুন →

৪টি রিভিউ

  1. পিঁপড়াবিদ্যা (২০১৪) : মুভি রিভিউ

    সংক্ষিপ্ত কাহিনী : চাকচিক্যময় ঢাকায় গ্রাজুয়েশন কমপ্লিট করা অতি সাধারন একজন যুবকের স্ট্রাগল আর দেশের জনপ্রিয় একজন নায়িকা রিমার ক্যারিয়ার বাঁচানো এবং সাথে আরো অনেক কিছুর সংমিশ্রণ হল “পিঁপড়াবিদ্যা” ।

    সারাদিনের ক্লান্তি আর না পাওয়ার হতাশা নিয়ে বাড়ি ফেরে “পিঁপড়াবিদ্যা” সিনেমার নায়ক মিঠু। পরদিন আবার চাকুরীর সন্ধানে মিঠু। ইন্টারভিউ দিল একটি সিগ্রেট কম্পানির সার্ভে করার কাজে। লাজুক মিঠুকে এক সময় সুপারভাইজার রাগ করে বলে, “আরে মিয়া ভাল কিছু করতে হলে, এক হাতে রাখবা পাঁচটা ঢাল আর অন্য হাতে রাখবা পাঁচটা তরবারি। আর সেই পাঁচটা তরবারি দিয়া সাই সাই করে সবাইরে শুয়াইয়া ফেলবা।” পরে মিঠুর সাথে পরিচয় আরেক মিঠুর, যিনি কিনা Lucky 7 নামের একটি MLM কম্পানির কর্মকর্তা। তিনি মিঠুকে Lucky 7 কম্পানিতে জয়েন করান এবং তার ভাঙা মোবাইলটি বদলাতে বলেন। মিঠু দোকানে মোবাইল কিনতে যায় এবং একটি চোর তাকে ডাকে কথা বলার জন্য। চোরটি বলে যে তার কাছে নতুন মোবাইল আছে এবং সে অনেক কম দামে তাকে মোবাইল দিতে পারবে। মিঠু ওই চোরের কাছ থেকে ৩৫০০ টাকা দিয়ে একটি মোবাইল কিনে নেয়। কিছুদিন পরে ওই ফোনে একটি কল আসে এবং বলা হয় যে, যার মোবাইল মিঠু কিনেছে তিনি নায়িকা রিমা। রিমা আরও বলে যে, মোবাইলটিতে অনেক গুরুত্বপূর্ণ জিনিস আছে। আর সে যদি মোবাইল ফেরত না দেয় তাহলে পুলিশ কে দিয়ে মিঠুকে গ্রেপ্তার করাবে। পরবর্তীতে রিমা মিঠুকে অনুরোধ করে তার বাসায় এসে মোবাইলটি ফেরত দিয়ে যেতে। মিঠু রাজি হয়। এগিয়ে চলে কাহিনী……………………

    পরিচালকঃ মোস্তফা সরয়ার ফারুকী

    প্রধান অভিনেতা ও অভিনেত্রীঃ শিনা চৌহান , নূর ইমরান মিঠু , মুকিত জাকারিয়া, সাব্বির হাসান লিখন ।

    যাকিছু ভালঃ প্রত্যেকটি চরিত্রের অভিনয় এবং ডায়লগ ডেলিভারি, গল্প উপস্থাপনা, হাস্যরস যা প্রথম থেকে আপনাকে অহেতুক হাসিয়ে ছাড়বে :)

    যাকিছু ভাল লাগেনিঃ নাহ, কিছু নাই। সবাই বলতেছিল শেষটা আরেকটু অন্যরকম ভাবে শেষ হলেও পারত। কিন্তু, আমার মনে হয় শেষ অংশটা ঠিক আছে। যারা সিনেমার ম্যাসেজটি ধরতে পারেননি তারা এমনটি মনে করছেন।

    ভাই থামেন। সিনেমার ২৫ আর ৫০ টাকার ডায়লগটি তাদের জন্য যাদের সিনেমার শেষটা ভাল লাগেনি। :v কোন ডায়লগটা বুঝতে পারছেন না তো? তাহলে আর কি, হলে যেয়ে দেখে ফেলুন পিঁপড়াবিদ্যা!!!!!!

    GD Star Rating
    loading...
সব রিভিউ দেখুন

রিভিউ লিখুন

আরও ছবি